শিরোনাম: 
●   বিশ্বব্যাপী শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের সংহতি প্রকাশের দিনঃ আন্তর্জাতিক শ্রমিক তথা ঐতিহাসিক মে দিবস আজ ●   সাতলায় বাড়ির ছাদ থেকে সায়েম নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার ●   সৌদি-কাতার সীমান্তে একটি সামুদ্রিক চ্যানেল নির্মাণ নিয়ে দন্ধ ●   কাতারে প্রত্যেক পুরুষ নাগরিকের জন্য সামরিক প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক ●   বিশ্বখ্যাত ফরাসী লেখক ও সাংবাদিক এমিল জোলার ১৭৭তম জন্মদিন আজ ●   আমেরিকাকে একঘরে করে ফেলতে যাচ্ছেন ট্রাম্প ●   বরিশাল বিমানবন্দরে ঝুঁকি নিয়ে বিমান ওঠানামা করছে ●   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দাদা শেখ লুত্ফর রহমানের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী ●   ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভে ইসরায়েলির গুলিতে ১৬ জন নিহত ও ৪০০ আহত ●   লক্ষ্মীপুর রামগতি রোডে সড়ক দূর্ঘটনায় নববধূ নিহত
ঢাকা, বুধবার, ২০ জুন ২০১৮, ৬ আষাঢ় ১৪২৫
NEWS CHANNEL
প্রচ্ছদ » ফটো গ্যালারী » ৭ই মার্চের ভাষণ বাংলাদেশ স্বাধীনতার মহাকাব্য
বুধবার ● ৭ মার্চ ২০১৮, ০৬:০৩ মিনিট
Email this News Print Friendly Version

৭ই মার্চের ভাষণ বাংলাদেশ স্বাধীনতার মহাকাব্য

---

ঢাকা, ৭ই মার্চ ২০১৮, বুধবারঃ ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণকে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতিবিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো।

শোষিত-বঞ্চিত বাঙালির ঘুরে দাঁড়ানোর দিন। বাঙালি জাতির স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা অবিস্মরণীয় গৌরবের এক অনন্য দিন। সুদীর্ঘকালের আপসহীন আন্দোলনের এক পর্যায়ে ১৯৭১ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক উত্তাল জনসমুদ্রে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন।

‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম,

এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’

 

বঙ্গবন্ধুর এই তেজদৃপ্ত ঘোষণাই ছিল প্রকৃতপক্ষে আমাদের স্বাধীনতার ভিত্তি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে গত বছর অক্টোবরে জাতিসংঘের শিক্ষা বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো স্বীকৃতি দিয়েছে।


বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক এই ভাষণ থেকেই দেশের মুক্তিকামী মানুষ ঘরে ঘরে চূড়ান্ত লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে। ১৯৬৬’র ৬-দফা, ৬৯’র গণঅভ্যুত্থান, ৭০’র নির্বাচনের পর যখন বাংলার জনগণ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশনা শুনতে অধীর আগ্রহে বসেছিল, তখনই ১৯৭১ সালের এই দিনে তত্কালীন রেসকোর্স ময়দানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে পরাধীনতার গ্লানি থেকে মুক্ত করার জন্য দিক-নির্দেশনা প্রদান করেছিলেন। সেদিন উত্তাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে বাংলার মুক্তিকামী জনতার উদ্দেশে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন-

 

প্রত্যেক ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে

তোমাদের যা কিছু আছে তাই নিয়ে শত্রুর মোকাবিলা করতে হবে

জীবনের তরে রাস্তাঘাট যা যা আছে সবকিছু-

আমি যদি হুকুম দিবার নাও পারি,

তোমরা বন্ধ করে দেবে।

রক্ত যখন দিয়েছি, রক্ত আরো দেবো।

এই দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাল্লাহ।

এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম,

স্বাধীনতার সংগ্রাম।

 

বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক রেসকোর্সে এ ভাষণ যখন দিচ্ছিলেন ঠিক ওইদিনই ঢাকায় এসে পৌঁছান জেনারেল টিক্কা খান ও ফরমান আলী। পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর আলোচনার অন্তরালে সামরিক প্রস্তুতিই বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ত্বরান্বিত করে। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সেই ভাষণ এ দেশের জনগণকে দারুণভাবে আন্দোলিত করে। ৭০’র ঐতিহাসিক নির্বাচনে বাংলার মানুষের ভোটে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে। কিন্তু পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী আওয়ামী লীগের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরে গড়িমসি করতে থাকে। তত্কালীন পূর্ব পাকিস্তানের অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে আলোচনার আড়ালে সামরিক অভিযানের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে পাকিস্তানের সামরিক জান্তা। নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনের পরও পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর ক্ষমতা হস্তান্তরে অনীহার কারণে বাংলার মুক্তকামী মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। নির্বাচিত প্রতিনিধিদের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর এবং সামরিক বাহিনীকে ব্যারাকে ফিরিয়ে নেওয়ার দাবিতে ৬ মার্চ পর্যন্ত ঘোষিত হরতাল, অসহযোগ আন্দোলন চলে। ৩রা মার্চ অনুষ্ঠিত পল্টনের জনসমাবেশে আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ৬ মার্চের মধ্যে যদি সরকার তার অবস্থান পরিবর্তন না করে তাহলে ৭ই মার্চ রেসকোর্স ময়দানের জনসভায় আন্দোলনের পূর্ণাঙ্গ কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। পরাধীনতার দীর্ঘ প্রহর শেষে পুরো জাতি যখন স্বাধীনতার জন্য অধীর অপেক্ষায়, ঠিক তখনই ঘোষণা অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হয় ঐতিহাসিক সেই ৭ই মার্চের জনসভা।

 

৭ই মার্চের ভাষণের মূল কয়েকটি দিক

সামগ্রিক পরিস্থিতির পর্যালোচনা;

নিজ ভূমিকা ও অবস্থান ব্যাখ্যা;

পশ্চিম পাকিস্তানী রাজনীতিকদের ভূমিকার ওপর আলোকপাত;

সামরিক আইন প্রত্যাহারের আহ‌্বান;

অত্যাচার ও সামরিক আগ্রসন মোকাবিলার হুমকি;

দাবী আদায় না-হওয়া পর্যন্ত পূর্ব পাকিস্তানে সার্বিক হরতাল চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা;

নিগ্রহ ও আক্রমণ প্রতিরোধের আহ্বান।

আমরা জাতি হিসেবে আমাদের পরিচয় ও অস্তিত্ব হারাতে চলেছিলাম। আমাদের ভাষা, সংস্কৃতি, সভ্যতা মুছে ফেলার চেষ্টা করেছিল পাকিস্তান, বিশ্বের মানচিত্র থেকে আমরা হারিয়ে গিয়েছিলাম; বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ভাষণ আমাদের সেই হারানো জাতি পরিচয়, হাজার বছরের পুরনো ভৌগোলিক পরিচয় ফিরিয়ে দিয়েছে। অস্তিত্ব রক্ষা করেছে আমাদের লোকসংস্কৃতি ও ভাষাসংস্কৃতির দিয়েছে একটি ভূখণ্ড এবং পতাকা। বিশ্বের মানচিত্রে তা এখন সুদৃঢ়ভাবে প্রোথিত।

বাংলাদেশ নামক স্বাধীন রাষ্ট্রের বয়স ৪৭ বছর। সময়ের বিবর্তনে অনেক কিছুই কালের গর্ভে হারিয়ে গেছে। বিকৃতির নিকৃষ্ট ষড়যন্ত্রের আবহে বদলে ফেলার চেষ্টা হয়েছে স্বাধীনতার অনেক ইতিহাস। কিন্তু এ ৪৭ বছরে অনেক কিছুই বদলে গেলেও বদলানো যায়নি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সেই ভাষণটি। পৃথিবীতে যত বিখ্যাত ভাষণ রয়েছে, এর মধ্যে মার্টিন লুথার কিংয়ের ভাষণটি ছাড়া বাকি সবগুলোই লিখিত। এর বাইরে একমাত্র বঙ্গবন্ধুর ভাষণটিই লিখিত নয়। এটি সম্পূর্ণ তার নিজের মনের কথা। ইতিহাসে এমন নজির বিরল। বিশ্বের মধ্যে এই একটি মাত্র ভাষণ, যা যুগের পর যুগ, বছরের পর বছর, ঘণ্টার পর ঘণ্টা বেজে চলেছে কিন্তু ভাষণটির আবেদন এতটুকু আজও কমেনি।

 

লেখক ও কলামিস্ট
মুহাম্মদ সোহেল চৌধুরী
নিউজ চ্যানেল


বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ, বিশ্ব ঐতিহ্য দলিলঃ বাঙ্গালীর স্বাধীনতা সংগ্রামের মুক্তি সনদ

সকলের রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ জিল্লুর রহমানের ৮৮তম জন্মবার্ষিকী আজ


আরো পড়ুন...

বিশ্বব্যাপী শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের সংহতি প্রকাশের দিনঃ আন্তর্জাতিক শ্রমিক তথা ঐতিহাসিক মে দিবস আজ বিশ্বব্যাপী শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের সংহতি প্রকাশের দিনঃ আন্তর্জাতিক শ্রমিক তথা ঐতিহাসিক মে দিবস আজ
সাতলায় বাড়ির ছাদ থেকে সায়েম নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার সাতলায় বাড়ির ছাদ থেকে সায়েম নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার
সৌদি-কাতার সীমান্তে একটি সামুদ্রিক চ্যানেল নির্মাণ নিয়ে দন্ধ সৌদি-কাতার সীমান্তে একটি সামুদ্রিক চ্যানেল নির্মাণ নিয়ে দন্ধ
কাতারে প্রত্যেক পুরুষ নাগরিকের জন্য সামরিক প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক কাতারে প্রত্যেক পুরুষ নাগরিকের জন্য সামরিক প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক
বিশ্বখ্যাত ফরাসী লেখক ও সাংবাদিক এমিল জোলার ১৭৭তম জন্মদিন আজ বিশ্বখ্যাত ফরাসী লেখক ও সাংবাদিক এমিল জোলার ১৭৭তম জন্মদিন আজ
আমেরিকাকে একঘরে করে ফেলতে যাচ্ছেন ট্রাম্প আমেরিকাকে একঘরে করে ফেলতে যাচ্ছেন ট্রাম্প
বরিশাল বিমানবন্দরে ঝুঁকি নিয়ে বিমান ওঠানামা করছে বরিশাল বিমানবন্দরে ঝুঁকি নিয়ে বিমান ওঠানামা করছে
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দাদা শেখ লুত্ফর রহমানের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দাদা শেখ লুত্ফর রহমানের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী
ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভে ইসরায়েলির গুলিতে  ১৬ জন নিহত ও ৪০০ আহত ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভে ইসরায়েলির গুলিতে ১৬ জন নিহত ও ৪০০ আহত
লক্ষ্মীপুর রামগতি রোডে সড়ক দূর্ঘটনায় নববধূ নিহত লক্ষ্মীপুর রামগতি রোডে সড়ক দূর্ঘটনায় নববধূ নিহত

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
বিশ্বব্যাপী শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের সংহতি প্রকাশের দিনঃ আন্তর্জাতিক শ্রমিক তথা ঐতিহাসিক মে দিবস আজ
বিশ্বখ্যাত ফরাসী লেখক ও সাংবাদিক এমিল জোলার ১৭৭তম জন্মদিন আজ
আমেরিকাকে একঘরে করে ফেলতে যাচ্ছেন ট্রাম্প
২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী সকল শহীদদের স্মরন করছি গভীর শ্রদ্ধায়
১৯৭১ সালের ভয়াল ২৫ মার্চ কালো রাতের গণ হত্যা দিবস আজঃ চাই গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি
স্বাধীনতা যুদ্ধের অকুতভয় বীর সেনানী ৭নং সেক্টর কমাণ্ডার কর্নেল (অব.) কাজী নূরুজ্জামান, বীর উত্তম এর ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ
‘পানির জন্য প্রকৃতি’ প্রতিপাদ্য নিয়ে আজ পালিত হচ্ছে বিশ্ব পানি দিবস
কিংবদন্তি সানাই বাদক ওস্তাদ বিসমিল্লাহ খানের ১০১ জন্মবার্ষিকী আজ
‘৭১এ পাকিদের বিরুদ্ধে স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশ গ্রহণকারী সবাই মুক্তিযোদ্ধা তবে সব মুক্তিযোদ্ধা দেশপ্রেমিক নয়
খ্যাতনামা বাঙালি কবি, নাট্যকার, গল্পকার, অনুবাদক ও সমালোচক বুদ্ধদেব বসুর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ